টিকা সূচী তথ্যসমূহ গর্ভধারণের আগে ও পরে টিকা

গর্ভকালীন সময়ের প্রয়োজনীয় টিকা

সময়মত টিকা বা ভ্যাক্সিন নিয়ে আমরা আমাদের পরিবার ও নিজেকে সুস্বাস্থ্যের পথে এগিয়ে আনতে পারি। যারা সন্তান নেয়ার পরিকল্পনা করছেন, বা যারা ইতোমধ্যেই গর্ভবতী তারা কিছু নির্দিষ্ট টিকা নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে পারেন। কিন্তু তার আগে জেনে নিতে হবে সেসকল টিকা যা নারীরা তাদের গর্ভকালীন সময়ে অথবা তার আগে গ্রহন করতে পারেন। তবে যে তিকাই নেয়া হোক না কেন, সেগুলো নির্ভর করবে, বয়স, জীবনযাত্রা ও শারীরিক অবস্থার উপর। সেই সাথে ডায়াবেটিস বা হাঁপানি ইত্যাদির উপরও টিকাগুলো নির্ভর করে।

সন্তানধারন করার আগে অবশ্যই মায়েদের ধাপে ধাপে সকল টিকা নিয়ে নেয়া উচিত। গর্ভবতী হওয়ার পূর্বে যে টিকাটি নেওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ তার মাঝে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল, রুবেলা টিকা। গর্ভবতী মায়ের রুবেলা ইনফেকশন হলে, সন্তান জন্মগত ত্রুতি নিয়ে জন্মগ্রহণ করতে পারে, অথবা জন্মের পূর্বেই মৃত্যুবরন করতে পারে। তাই গর্ভধারণের আগে রুবেলা টিকা নেয়া অত্যন্ত জরুরি। তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন, রুবেলার টিকা নেওয়ার কমপক্ষে এক মাস পর মা গর্ভধারণ করে। অর্থাৎ রুবেলার প্রতিরোধ ক্ষমতা শরীরে তৈরি হওয়ার পর গর্ভধারণ করতে হবে।
গর্ভবতী মায়ের হুপিং কাশির মাধ্যমে সন্তানের মারাত্মক ক্ষতি হয়। এছাড়াও মা যদি হেপাটাইটিস বি-তে আক্রান্ত হয়, তবে সন্তানের শরীরেও তা ছোড়ানোর সম্ভবনা থাকে। আর মায়ের ফ্লু থাকলে, সন্তানের আকার এবং ওজন কম হতে পারে, এমনকি মারাও যেতে পারে। তাই প্রতিটি গর্ভবতী মায়ের হুপিং কাশি, হেপাটাইটিস বি এবং ফ্লুয়ের টিকা নেওয়া উচিত। আমাদের দেশে রুটিন ইপিআই সিডিউলে টিটেনাস এবং ডিপথেরিয়ার সাথে উপরোক্ত তিনটি টিকাই দেয়া হয়। অর্থাৎ ৬ সপ্তাহ, ১০ সপ্তাহ এবং ১৪ সপ্তাহ বয়সেই এসকল টিকা নেয়া হয়ে থাকে। তাই গর্ভবতী মাকে আগে নিশ্চিত হতে হবে যে, তার এসকল টিকা নেয়া আছে কি না। নেয়া থাকলে, গর্ভধারণের ২৭ থেকে ৩৬ সপ্তাহের মধ্যেই এই তিনটি টিকা একসঙ্গে নেওয়া যেতে পারে।
গর্ভকালীন সময়ে যেন মা ও তার সন্তান বিপদমুক্ত থাকে তাই, মেয়েদের ১৫ বছর বয়সেই হাম এবং রুবেলার টিকার পাশাপাশি টিটির প্রথম ডোজ, ৪ সপ্তাহ পরে দ্বিতীয় ডোজ, ৬ মাস পর তৃতীয় ডোজ, ১ বছর পর চতুর্থ ডোজ এবং চতুর্থ ডোজের ১ বছর পর পঞ্চম ও সর্বশেষ ডোজ নিয়ে নেওয়া উচিত।
এছাড়াও গর্ভবতী অবস্থায় যদি মাকে কোন ভ্রমণে যেতে হয়, তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ নিয়ে ভ্রমনকালীন টিকা নেয়া যেতে পারে। গর্ভবতীকালীন ভ্রমণের সময়ে যেসব টিকা নেয়া হয়, সেগুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে র্যাাবিস এবং মেনিনজাইটিসের টিকা।
কিছু কিছু টিকা গর্ভকালীন সময়ে একদমই নেয়া যাবে না। সেগুলো সম্পর্কে নজর দিতে হবে। এধরনের টিকা গুলো হল, মাম্পস, হাম, রুবেলা, ভ্যারিসেলা (চিকেন পক্স), বিসিজি, হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস এবং ইয়েলো ফিভারের টিকা। এছাড়াও টাইফয়েড এবং জাপানিজ এনকেফালাইটিসের টিকাও পরিহার করা ভালো।