কেনাকাটা তথ্যসমূহ মা ও শিশু’র দরকারি যত পণ্য

মা ও শিশু’র দরকারি যত পণ্য

একবার চিন্তা করে দেখেছেন কি আপনার সদ্য জন্ম নেওয়া সন্তানের জন্য জুতা কোথা থেকে কিনবেন?
অথবা গর্ভাবস্থায় আরামদায়ক একটি জামা কোথা থেকে কিনবেন তাই নিয়ে হয়তো বা মন খারাপ করে বসে আছেন।
মা ও শিশুর জন্য প্রয়োজনীয় যাবতীয় সমগ্রী একসঙ্গে এক ছাদের নিচে পাওয়া গেলে অনেক সুবিধা হত। দশ জায়গায় ঘুরতেও হয় না আবার পছন্দ অপছন্দ নিয়ে ঝামেলা পোহাতে হয় না।
আবার অনেক বাবা মা-ই সন্তানের জন্য হয়ত ‘প্র্যাম’ খুঁজছেন। আরও আছে অনেক খুঁটিনাটি ব্যাপার যা আবার আমাদের সমাজে একটু চুপিসারেই বলা হয়, সেসব জিনিসও তো নিত্যদিনই ব্যবহার্য।
গত বছরেই দেশি ফ্যাশন হাউজ ‘সাদাকালো’ সন্তানসম্ভবা মেয়েদের জন্য আরামদায়ক পোশাক বাজারে এনেছে। এটি সম্ভবত বাংলাদেশের প্রথম ঘটনা।
যাই হোক রাজধানীতে এখন বেশ কয়েকটি দোকান হয়েছে যেখানে থেকে এই প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো বেছে নেওয়া যেতে পারে।
মি অ্যান্ড মাম
৫এ, গুলশান অ্যাভনিউ, ঢাকা।

একতলা জুড়ে বেশ বড় পরিসরের দোকান। উদ্যোক্তারা চেয়েছিলেন মা ও শিশুদের জন্য একই ছাদের নিচে অনেক কিছু রাখতে, এমনটাই জানান অ্যাসিস্টান্ট ম্যানেজার ইফতে খাইরুল আলম।
উদ্যোক্তাদের আরও মনে হয়েছিল আমাদের দেশে এই জিনিসগুলোর মান নাকি মানসম্মত নয়। তাই বেশিরভাগ জিনিসই আসে বিদেশ থেকেই। দেশি জিনিস পাওয়া যায় না বললেই চলে।
এই কারণে দাম তো বেশি হবেই!
শত সমালোচনা আর বিপত্তি থাকার পরও যখন পোশাক শিল্পে আমাদের দেশ এগিয়ে যাচ্ছে সেখানে মা ও শিশুদের জন্য পোশাক আসছে বিদেশ থেকে। কারণ কী?
দোকানের সুধাময় চন্দ্রদাশ জানান, এশিয়ার কয়েকটি দেশ শিশুদের জন্য তৈরি পণ্যে বেশ দক্ষতা এনেছে। কেন যে আমরা পারছিনা, এটা চিন্তার বিষয় হতে পারে!   
যাই হোক পাওয়া যায় নব্য জন্ম নেওয়া শিশুদের প্রয়োজনীয় দ্রব্য, মাতৃত্বকালীন বিভিন্ন জিনিস, খেলনা আরও অনেক কিছু।
আলম আবাও যোগ করেন, যে যার সাধ্যমতো নবজাত শিশুর জন্য সবচাইতে ভালো পণ্য কিনতে চান। সুতরাং পণ্যের মানই শেষ কথা। বিশ্বায়নের কারণে চাহিদার ধরণ কিছুটা পরিবর্তিত হচ্ছে বলেও মনে করেন তিনি।
ডায়াপার ১৪০ থেকে ১,৭৯৫ টাকা। নিপল ৪৫ থেকে ৬৫০ টাকা। ফিডার ১৮০ থেকে ১ হাজার ৮শ’ টাকা।
সদ্যজাত শিশুর জুতা ১১০ থেকে ৫২০ টাকায় মিলবে। এখানে ৩৫০ থেকে ৫ হাজার টাকার মধ্যে নবজাতক থেকে ৮ বছর বয়সীদের জন্য জামা কাপড় মিলবে।
খেলনা রয়েছে বিস্তর! আর ‘প্র্যাম’ কিন্তু সস্তা নয়! ৩ হাজার ৬শ’ টাকা থেকে শুরু হয়ে মানভেদে দাম পড়বে ১৭ হাজার টাকা।
রয়েছে শিশু ও মায়েদের প্রসাধনী এবং অলঙ্কার।     
কিডজ অ্যান্ড মামস   
বাড়ি ৪৬, রোড ১১, বনানী।

কিডজ অ্যান্ড মামস    

ম্যানেজার খন্দকার জাকির হোসেন বলেন, “এই শপের শুরু হয়েছিল ১০ বছরেরও আগে।”
শুরুটা বনানী ১১’তে হলেও এই প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে ধানমণ্ডি, শান্তিনগর আর উত্তরাতেও শাখা খুলেছে।
হোসেন জানান আগামি মাসেই মিরপুরে খুলবে তাদের নতুনতম শোরুমের দরজা।
দোকনটি দুই তলা মিলিয়ে, তাই আকারও বেশ বড় বলা যায়। এখানেও রয়েছে বিদেশি জিনিসের ছড়াছড়ি।
মায়েদের জন্য লোশন ২৮০ টাকা থেকে ২,৮৭৫ টাকা। বেবি লোশন ১৫৫ টাকা ৭৫০ টাকা। বেবি লোশন নাকি তুলনায় বেশি বিক্রি হয়।
খেলনার দাম ৫শ’ থেকে ১০ হাজার ৯শ’ টাকা! বারবি ডল ১ হাজার ১শ’ টাকা থেকে ১৭ হাজার টাকা।
প্র্যাম (পেরামবুলেটর) ৩ হাজার ২শ’ থেকে ৭ হাজার ৫শ’ টাকা। ডাবল প্র্যাম ২২ হাজার টাকা।
বেবি বেডিং সদ্যজাত থেকে সাড়ে ৪ বছর বয়সীর জন্য দাম ১ হাজার ৫শ’ থেকে। ডায়াপার ৬৭০ টাকা থেকে শুরু হয়ে ২ হাজার ৮শ’ টাকা।

মাদার’স কেয়ার
নবজাত শিশুদের কাঁথা ১৭০ থেকে ২৮০ টাকা। এটি কিন্তু দেশি।    
মাদার’স কেয়ার
বাড়ি ৫৪, রোড ১১, বনানী।
স্টোর অফিসার চৌধুরী ফেরদৌস শিমুল এই প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন শুরু থেকেই, তাও বছর দশেক হবে।
জানালেন মালিক এক সময় থাকতেন বিলাতে আর দেশে ফিরে দেখলেন এখানে সদ্যজাত শিশুর জন্য মানসম্পন্ন জিনিস পাওয়া মুশকিল। বিশেষায়িত জিনিসপত্রও খুব একটা মেলেনা।
শিশু ও মা’য়ের জন্য উন্নত পণ্য সরবরাহ করতেই ২০০৪ সাল থেকে যাত্রা শুরু করে এই দোকান।

স্টোর ম্যানেজার শাওন খান জানান, মানের কথা চিন্তা করে বিলাতের বেশ কিছু পণ্য এখানে রাখা হয়। এ কারণে দাম বেশিই বলা চলে।
এখানে বিভিন্ন পণ্যের মধ্যে উল্লেখযোগ্যগুলো হল— ম্যাটারনিটি ব্রা ৪৫০ টাকা। ম্যাটারনিটি ড্রেস ১,৬৫০ টাকা থেকে ২ হাজার ৬শ’ টাকা।
নবজাতকের জুতা ৬৯০ থেকে ১,৪৫০ টাকা। আছে বিলেতের কিছু ব্র্যান্ডের লোশন আর কিছু নামজাদা কোম্পানির অন্তর্বাসও।