কেনাকাটা তথ্যসমূহ ডেলিভারির সময় ব্যাগ গুছানো

ডেলিভারির সময় ব্যাগ গুছানো

সন্তান জন্মদানের জন্য গর্ভবতী মা’কে নির্দিষ্ট সময়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হয়। আর এ ব্যাপারে অনেক মা কিংবা তাঁর পরিবারের সদস্যরা তাড়াহুড়ো করে হাসপাতালে আসেন আর প্রয়োজনীয় অনেক কিছু নিতেই ভুলে যান। তাই আগে থেকেই একটি চেকলিস্ট তৈরি করে রাখা উচিৎ যাতে শিশুর ও মায়ের প্রয়োজনীয় কোন জিনিস বাদ না পড়ে যায়। কি হতে পারে সেইসব জিনিসগুলো? একটু চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাকঃ
•    মায়ের ডেলিভারির জন্যঃ
১।  মায়ের গর্ভকালীন সময়ের সব স্বাস্থ্য রিপোর্ট।
২। নিজের জন্য প্রয়োজনীয় পোশাক ও জুতা যা পরিধান করে মা আরাম পাবেন।
৩। এমন কিছু জিনিস যা ব্যক্তিগতভাবে মা’কে আরাম প্রদান করবে এবং মা মানসিক প্রশান্তি পাবেন, যেমন- পরিবারের ও কাছের মানুষের ছবি, আলাদা বালিশ ইত্যাদি।
•    পরিবারের অন্য সদস্যদের জন্যঃ
১। অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হলো ক্যামেরা বা ভিডিও ক্যামেরা সাথে রাখা যা সন্তানের সাথে পরিবারের প্রথম আনন্দময় মুহূর্তগুলোকে চিরদিনের জন্য ধরে রাখতে সাহায্য করবে।
২। এক সেট আলাদা কাপড় ও জুতো।
৩। হাসপাতালে খাওয়ার জন্য হালকা নাস্তা কিংবা সময় কাটানোর জন্য বই বা ম্যাগাজিন।
৪। পর্যাপ্ত টাকা ও ক্রেডিট কার্ড।
•    ডেলিভারির পরে মায়ের প্রয়োজনীয় জিনিসঃ
১। প্রসবের পর পরিষ্কার ও আরামদায়ক কাপড় ও জুতা।
২। সদ্য প্রসূতি মায়ের জন্য পুষ্টিকর খাবার ও পানীয়।
৩। মায়ের ব্যক্তিগত কিছু জিনিস যেমন টুথব্রাশ, টুথপেস্ট, চিরুনি ও আয়না ইত্যাদি।
৪। মায়ের জন্য প্রয়োজনীয় ম্যাটারনিটি ব্রা বা অন্তর্বাস, সেনিটারি প্যাড ইত্যাদি।

৫। শিশুকে নিয়ে বাড়ি যাবার জন্য প্রয়োজনীয় পরিষ্কার কাপড়।
•    শিশুর জন্য প্রয়োজনীয় সব জিনিসপত্রঃ
১। শিশুকে জন্মের পর কোলে নেওয়ার জন্য ও পেঁচিয়ে রাখার জন্য তোয়ালে।
২। শিশুর জন্য নরম ও আরামদায়ক কাপড়-চোপড়।
৩। শিশুর জন্য উপযুক্ত বালিশ, বিছানা ও কম্বল।
•     যা যা সঙ্গে রাখবেন নাঃ
১। জুয়েলারী বা দামী গহনা।
২। অনেক বেশি টাকা একসঙ্গে হাসপাতালে রাখবেন না।
৩। অযথা বেশি কাপড়-চোপড় এনে বোঝা বাড়াবেন %M0??া।